ফেসবুক রিলসে বেশি ভিউ পাবার উপায় ২০২৩

প্রিয় পাঠক, আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটির আলোচ্য বিষয় হচ্ছে ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক রিলস ভিডিওতে ভিউ বাড়ানোর কিছু কৌশল নিয়ে। পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ দিয়ে পড়লে আপনিও জেনে যাবেন কীভাবে ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক রিলস ভিডিওতে বেশি ভিউ পাওয়া যায়।

এইতো বেশ কিছুদিন হলো ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাদের প্লাটফর্মে রিলস নামক ভিডিও ফরম্যাট সুবিধাটি ব্যবহারকারীদের জন্য এনেছে। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের হলেও বিনোদনমূলক ভিডিও ফরম্যাটটি সহজেই সকলের কাছে ভালো লাগার একটি জায়গা তৈরি করে নিয়েছে। কনটেন্ট নির্মাতা এবং ব্যবহারকারী উভয়ের কাছে এই ভিডিও ফরম্যাটটি দিন দিন আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেখা যাচ্ছে যে, ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামের প্রায় অধিকাংশ ব্যবহারকারীরা দিনের অনেকটা সময় এই রিল ভিডিওগুলো দেখে সময় কাটিয়ে দেন। আবার যারা এসবে আসক্ত তাদের অনেকরই পছন্দের ক্রিয়েটর বা নির্মাতা রয়েছেন, তাদের অনেকেই সেলেব্রেটি আবার কেউ কেউ বিভিন্ন মাধ্যম ও কাজে বেশ জনপ্রিয়। কিন্তু এসবের পর দিন দিন যুক্ত হচ্ছে আরও নতুন নতুন কনটেন্ট নির্মাতারা।

রিলস অপশন ব্যবহারের মাধ্যমে কনটেন্ট নির্মাতারা তাদের দর্শকদের কাছে দ্রুত বার্তা বা কনটেন্ট পৌঁছে দিতে পারছেন। কেবল কনটেন্ট নির্মাতাদের ফলোয়ারদের কাছে নয়, নতুন নতুন আরও মানুষের সাথে সংযুক্ত হওয়ার জন্যও রিলস আজকাল ট্রেন্ডে উঠেছে।

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামের কনটেন্টগুলো ক্রস প্লাটফর্মে সাপোর্ট করে বিধায় ইনস্টাগ্রামের রিলস ভিডিও আপনি ফেসবুকেও দেখাতে পারবেন। যা কনটেন্ট নির্মাতাদের কাছে কনটেন্ট এনগেজমেন্ট বৃদ্ধির জন্য কার্যকরি বটে।

একজন কন্টেন্ট নির্মাতা হিসেবে আপনার দর্শক এবং কন্টেন্টের রিচ বাড়ানোর জন্য যে পদক্ষেপগুলো নিতে পারেন এমন কয়েকটি উপায় আসুন দেখে নেওয়া যাক–

কীভাবে ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক রিলস ভিডিওতে ভিউ বাড়ানো যায়?

নিচে ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক রিলস ভিডিওতে ভিউ বাড়ানোর ১০ টি উপায় তুলে ধরা হলো-

০১. সম্প্রতি প্রকাশিত কিংবা কোনো জনপ্রিয় মিউজিক বা ট্রেন্ড খুঁজে বের করুন, দর্শকরা যেসব বিষয়ের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত বা সংযুক্ত অনুভব করে থাকেন এবং সেগুলো দেখার প্রতি তাদের বেশি আগ্রহ থাকে। তাই ট্রেন্ডিং মিউজিকের সাথে ট্রেন্ডিং বিষয়গুলো যুক্ত করে পোস্ট করুন। এছাড়া এ বিষয়ের মধ্যেও আপনার নিজস্ব কোনো আইডিয়া দিয়ে নতুন নতুন কিছু তৈরির চেষ্টা করবেন। যাতে দর্শকরা সেটি সহজেই গ্রহণ করতে পারে এবং বিনোদন পেতে পারে।

০২. একেক অ্যাকাউন্টের ফলোয়ার বেস একেকরকম এজন্য কেবল ট্রেন্ড অনুসরণ করে কাজ করলে চলবে না। আপনার কনটেন্ট সবাই দেখবে কি না বা সবার সেই বিষয়ের প্রতি আগ্রহ জন্মবে কিনা তা আগে নিশ্চিত করুন। এজন্য আপনার দর্শক কারা তা আগে বুঝুন এবং তাদের জন্য কোন ধরনের মিউজিক বা কন্টেন্ট কাজ করবে তা খুঁজে বের করুন।

ফেসবুক রিলসে বেশি ভিউ পাবার উপায় ২০২৩
ফেসবুক রিলসে বেশি ভিউ পাবার উপায় ২০২৩

০৩. আপনার কনটেন্টে ক্যাপশন ব্যবহার করুন। আকর্ষণীয় ক্যাপশন সহজেই দর্শকের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম। কনটেন্টে ক্যাপশন ব্যবহারে আপনার রিলের বিষয়বস্তু কী সেটি দর্শক সহজে বুঝতে সক্ষম হবে। তাই বলে রিলে প্রচুর ভিউ পাবার জন্য কনটেন্টের সাথে অহেতুক ভুয়া এবং বিভ্রান্তিকর ক্যাপশন ব্যবহার পরিহার করুন। এ কাজে শুরুতেই হয়তো আপনার কনটেন্টে প্রাথমিকভাবে কিছু ভিউ এনে দিলেও, দীর্ঘমেয়াদে এ কাজটি করলে মানুষ আপনার কনটেন্ট থেকে মুখ ফিরিয়ে নিবে এবং সুনাম নষ্ট করবে।

০৪. আপনার রিল ভিডিওতে প্রাসঙ্গিক ‘হ্যাশট্যাগ’ কি-ওয়ার্ড ব্যবহার করুন। হ্যাশট্যাগ কি-ওয়ার্ড যেকোনো কিছু সার্চের ক্ষেত্রে বেশ সহায়ক ভূমিকা পালন করে। তাই আপনার রিলটি কী কী বিষয় নিয়ে তৈরি তা দেখে সে অনুযায়ী সামঞ্জস্যপূর্ণ কি-ওয়ার্ডগুলো ব্যবহার করুন।

০৫. রিল ভিডিও খুব বেশি দীর্ঘায়িত করবেন না। মানুষ রিলস ভিডিও দেখে কেবল এসব ভিডিওর দৈর্ঘ্য অনেক স্বল্প হওয়ার কারণে। এটিই হচ্ছে রিলের মূল বিশেষত্ব। তাই রিল দীর্ঘায়িত না করে দ্রুত মূল পয়েন্টে নিয়ে কাজ করুন। যাতে স্বল্প দৈর্ঘের মূল তথ্য বা বিনোদন সহজেই দর্শকের কাছে তুলে ধরা যায়। তাই বলে অতোটা সংক্ষিপ্ত দৈর্ঘের নয় যা কন্টেন্টের মূল বিষয়টি সহজে ব্যাখ্যা করতে অক্ষম। ফেসবুক রিলে বেশি ভিউ পেতে ৭ থেকে ১০ সেকেন্ডের রিলস নিয়ে কাজ করতে পারেন।

০৬. দর্শকরা আপনার কথা মনে রাখার তুলনায় আপনার পোস্টকৃত রিল কেমন অনুভব করেছে তা নিয়ে কাজ করুন। এজন্য এমন কিছু করুন যা তাদের মধ্যে এক ধরনের আবেগ বা অনুভূতি সৃষ্টি করতে সাহায্য করে।

০৬. রিল তৈরিতে আশেপাশে ভালো লাইটিং বা আলোর ব্যবস্থা রাখুন। ভিডিওতে পর্যাপ্ত নান্দনিকতা আছে কি না তা নিশ্চিত করুন। কেননা দর্শকরা সুন্দর ও ফ্রেশ ভিডিও দেখতে পছন্দ করে।

০৭. রিলের কন্টেন্টের বিষয়বস্তুতে পর্যায়ক্রমে পরিবর্তন আনার চেষ্টা করুন। দর্শকদের কাছে বৈচিত্র্যপূর্ণ কনটেন্ট একঘেয়েমি দূর করতে বেশ কার্যকরি। এর পাশাপাশি আপনার কনটেন্টের উপর বিস্তৃত পরিসরের দর্শক ধরতে সাহায্য করবে।

০৮. ফেসবুকে রিল পোস্টের পূর্বে আপনার কিছু বিশ্বস্ত এবং পরিচিত মানুষকে তা দেখিয়ে প্রথমে রিভিউ নিন। সে মূহূর্তে তাদের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া কী তা জেনে নিন। এতে করে রিল প্রকাশের আগেই এর মান সম্পর্কে একটি ক্লিয়ার ধারণা পেয়ে যাবেন।

০৯. আপনার রিল ভিডিওটিতে ফুল স্ক্রিন ব্যবহার করুন। রিলের ভিডিওগুলো সাধারণত ৯:১৬ এই অনুপাতের হয়ে থাকে। এজন্য দর্শকরা আপনার রিলগুলো তাদের ডিভাইসে ফুল স্ক্রিন নিয়ে উপভোগ করতে পারে তা নিশ্চিত করুন।

১০. রিলে হাই রেজোলিউশনের ভিডিও ব্যবহার করুন। কম রেজোলিউশনের ভিডিওর প্রতি দর্শকের আগ্রহ কম থাকে। ফেসবুক রিলে ভিউ বেশি পাবার চেয়ে এতে হিতে বিপরীত হয়ে থাকে।

১১. আপনার রিলে আকর্ষণীয়, সুন্দর ও নজরকাড়া প্রফেশনাল ডিজাইনের মতো থাম্বনেইল ব্যবহার করুন। কারণ বেশিরভাগ দর্শকরা থাম্বনেইলে আকর্ষিত হয়ে কনটেন্টে ক্লিক করেন। তাই আপনার কনটেন্টে ভালো এনগেজমেন্ট বাড়ানোর জন্য এ বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দিন।

১২. অনেকেই হাতের স্মার্টফোন দ্বারা রিল তৈরি করেন। যদি স্মার্টফোনের ক্যামেরা কোয়ালিটি মন্দ থাকে তাহলে সবকিছু ঘোলাটে দেখাবে। আর দর্শকরাও এতে বিরক্ত প্রকাশ করতে পারে। তাই বাজারে থাকা ভালো মানের ক্যামেরা সংযুক্ত স্মার্টফোন কিনে নিতে পারেন আপনার চমৎকার রিল ভিডিও তৈরির জন্য।

১৩. বর্তমান প্রেক্ষাপটে রিলস হচ্ছে সংক্ষেপ্ত দৈর্ঘ্যের ভিডিও প্রকাশের এক অভিনব প্লাটফর্ম যা কনটেন্ট এনগেজমেন্ট বৃদ্ধির সবচেয়ে দ্রুততম এবং সরাসরি প্রকাশের উপায়। সমীক্ষায় দেখা যায়, রিলের পরে দীর্ঘ দৈর্ঘ্যের কোনো কনটেন্ট বা যেকোনো ছবি পোস্ট করা হয় তাহলে দেখা যায়, রিলের পরে অবস্থানের কারণে সেগুলোরও এনগেজমেন্ট বেড়ে যাচ্ছে। পুরাতন ফলোয়ারদের এনগেজমেন্ট বৃদ্ধির পাশাপাশি আরও নতুন নতুন ফলোয়ার অর্জনের জন্য ভালো উপায় হয়ে উঠেছে এই জনপ্রিয় রিলস। তাই আপনি একজন কনটেন্ট নির্মাতা হিসেবে তুঙ্গে থাকা জনপ্রিয় এই রিলসের সেরা উপায়গুলো ব্যবহার করা নিশ্চিত করুন।

সবশেষে, ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুক রিলস ভিডিওতে ভিউ বাড়ানোর নিয়মগুলো কাজে লাগিয়ে আপনিও আপনার রিল ভিডিওগুলো আরও বেশি করে বেশি মানুষের নিকট পৌঁছাতে পারবেন। আজ এইটুকুই। পরবর্তীতে আরও অনন্য কৌশল নিয়ে সবিস্তারে আলোচনা করা হবে। ধন্যবাদ।

Leave a Comment